আমেরিকায় নওজোয়ানদের জন্য পরিস্থিতি খুবই ‘ভীতিকর’: ট্রাম্প

 

 

 

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি পদে নিজের মনোনীত ব্রেট ক্যাভানোর পক্ষে সাফাই গেয়ে মঙ্গলবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে ট্রাম্প এ মন্তব্য করেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

ক্যাভানো সম্প্রতি কয়েকজন নারীর কাছ থেকে তার বিরুদ্ধে ওঠা যৌন অসদাচরণের অভিযোগ মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছেন।

সিনেটের শুনানিতে উৎরে গেলেও তাকে এখন এফবিআই এর তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। সেই তদন্তে দোষী না হলে সিনেটে ভোট হবে, তারপরই সুপ্রিম কোর্টে নিয়োগ পাবেন ক্যাভানো।

তদন্তে কোনো হস্তক্ষেপ করা হবে না বলে জানালেও ট্রাম্প শুরু থেকেই ৫৩ বছর বয়সী ক্যাভানোকে সমর্থন করে আসছেন।

তদন্তে কি উঠে আসে তার জন্য অপেক্ষা করছেন জানিয়ে ট্রাম্প বলেছেন, এফবিআই ছাড়পত্র দিলে সিনেটের ভোটেও ক্যাভানো উৎরে যাবেন বলেই তিনি আশাবাদী।

ক্যাভানোর নিয়োগ নিশ্চিত হলে মার্কিন সর্বোচ্চ আদালতে রক্ষণশীলদের অবস্থান আরও সুসংহত হবে।

মঙ্গলবার হোয়াইট হাউজের সাংবাদিক সম্মেলনে ট্রাম্প বলেন, “অভিযোগ উঠলেই কেউ দোষী হয়ে যায় না।”

“সারাজীবন শুনে এসেছি, যতক্ষণ পর্যন্ত দোষ প্রমাণিত না হয়, ততক্ষণ পর্যন্ত আপনি নির্দোষ। আর এখন, যতক্ষণ নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে না পারছেন, ততক্ষণ আপনি দোষী,” বলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

আমেরিকান তরুণদের জন্য খুবই ভীতিকর সময় যাচ্ছে, যেখানে ‘হয়ত দোষ না করেও আপনি দোষী হয়ে যেতে পারেন’, মন্তব্য করেন তিনি।

গত সপ্তাহেও আমেরিকান যুবকদের জন্য কি বার্তা দেবেন জিজ্ঞেস করা হলেও ট্রাম্প একইরকম মন্তব্য করেছিলেন।

নিউ ইয়র্কে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছিলেন, “কেউ হুট করে এসে বলে বসতে পারে ৩০ বছর আগে, ২৫ বছর আগে, ১০ বছর আগে কিংবা ৫ বছর আগে সে আমার সঙ্গে ভয়ঙ্কর আচরণ করেছিল; সে এটা করেছিল, সে ওটা করেছিল- আমাদের দেশে সত্যিই এ এক বিপজ্জনক অবস্থা চলছে।”

মঙ্গলবার মিসিসিপির সাউদাভেনে এক সমাবেশে মার্কিন প্রেসিডেন্ট গত সপ্তাহে সিনেটের শুনানিতে ক্যাভানোর বিরুদ্ধে অভিযোগকারী নারী অধ্যাপকের দেওয়া সাক্ষ্য নিয়ে কৌতুকও করেছেন।

রাজনৈতিক কারণে যারা অভিযোগ সাজায় তাদের কড়া সমালোচনা করেন তিনি।

“তারা মানুষকে শেষ করে দিতে চায়, তারা সত্যিকারের খারাপ লোক,” বলেন ট্রাম্প।