অনির্বাচিত সরকারনড়িয়ার ব্যাপারে উদাসীন: ফখরুল

শরিয়তপুরের নড়িয়ায় ভয়াবহ নদীভাঙনের শিকার দুর্গত মানুষের সাহায্যার্থে এখনও ত্রাণ তৎপরতায় সরকার নিস্ক্রিয় ভূমিকা পালন করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি নড়িয়া উপজেলায় জরুরি ভিত্তিতে ত্রাণ দেয়ার দাবি করেছেন।

 

 

 

 

মঙ্গলবার রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ফখরুল বলেন, শরীয়তপুর জেলাধীন নড়িয়া উপজেলায় পদ্মার ভয়াবহ ভাঙনে গ্রামের পর গ্রাম বাড়িঘর নদীগর্ভে বিলীন হওয়া ও ফসলি জমি ডুবে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। গ্রামের পর গ্রাম বাড়িঘর, স্থাপনা পদ্মা নদীতে বিলীন হওয়ায় বন্যা উপদ্রত মানুষ এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছে। অথচ ভয়াবহ ভাঙনের পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকারের কার্যকর কোনো উদ্যোগ নেই। নেই কোনো জরুরি ত্রাণ তৎপরতা।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয় বলেই বর্তমান শাসকগোষ্ঠী জনগণের দাবি-দাওয়াকে উপেক্ষা করে রাষ্ট্রক্ষমতা আঁকড়ে আছে, আর সেজন্যই জাতীয় দুর্যোগের সম্ভাবনায় আগাম ব্যবস্থা গ্রহণে উদাসীন থাকে। নড়িয়া উপজেলায় প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে মানুষের কষ্ট ও দুর্ভোগ সীমাহীন পর্যায়ে পৌঁছলেও সরকারের নীরব ভূমিকা জনদুর্ভোগকে শোচনীয় পর্যায়ে উপনীত করেছে।
ফখরুল বলেন, নড়িয়ায় ভয়াবহ ভাঙনের তাণ্ডবে গৃহহারা উপদ্রত মানুষ এখন চরম সংকটের মধ্যে নিপতিত হয়েছে। কিন্তু পরিতাপের বিষয় এই যে, দুর্গত মানুষের সাহায্যার্থে এখনও পর্যন্ত ত্রাণ তৎপরতায় সরকার নিস্ক্রিয় ভূমিকা পালন করছে। আমি অবিলম্বে নড়িয়া উপজেলার বন্যা আক্রান্ত এলাকায় জরুরি ভিত্তিতে ত্রাণসামগ্রী পৌঁছাতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবি জানাচ্ছি।
একইসঙ্গে তিনি বিএনপির স্থানীয় সব পর্যায়ের নেতাকর্মী এবং স্বচ্ছল ও বিত্তবানদের দুর্গতদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান।