বাংলাদেশ এগিয়ে গেল শ্রীলঙ্কার চেয়ে

র‌্যাঙ্কিং হালনাগাদের পর বাংলাদেশের রেটিং পয়েন্ট বেড়েছে ৩। শ্রীলঙ্কা হারিয়েছে ৭ পয়েন্ট। শ্রীলঙ্কার চেয়ে বাংলাশে এগিয়ে এখন ১৬ পয়েন্ট।

তবে ছয়ে থাকা পাকিস্তান আরও একটু এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ থেকে। ৬ পয়েন্ট যোগ হয়ে পাকিস্তানের রেটিং পয়েন্ট দাঁড়িয়েছে ১০২। বাংলাদেশের পয়েন্ট ৯৩, শ্রীলঙ্কার ৭৭।

বড় পরিবর্তন হয়েছে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে। ভারতকে টপকে এক নম্বরে উঠে গেছে ইংল্যান্ড।

৮ পয়েন্ট বেড়ে ইংল্যান্ডের রেটিং পয়েন্ট এখন ১২৫। ১ পয়েন্ট হারিয়ে ভারতের পয়েন্ট ১২২।

এবারের হালনাগাদে ২০১৪-১৫ মৌসুমের পারফরম্যান্স বিবেচনার বাইরে চলে যাওয়াতেই ইংল্যান্ডের এই উন্নতি। বাজে কাটানো ওই মৌসুমে ২৫ ওয়ানডের মাত্র ৭টি জিততে পেরেছিল ইংল্যান্ড। বিশ্বকাপে বাদ পড়েছিল প্রথম রাউন্ডে।

ওই বিশ্বকাপের পর ২০১৫-১৬ মৌসুম থেকে ওয়ানডে ক্রিকেটে ইংল্যান্ড ঘুরে দাঁড়িয়েছে অবিশ্বাস্যভাবে। সেটির পুরস্কার মিলল র‌্যাঙ্কিংয়ে। ২০১৩ সালের জানুয়ারির পর প্রথমবার ওয়ানডের শীর্ষে উঠল ইংলিশরা।

চার রেটিং পয়েন্ট হারিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা নেমে গেছে দুই থেকে তিনে। পাঁচে থাকা বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া হারিয়েছে ৮ রেটিং পয়েন্ট।

টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ে হালনাগাদের পর তেমন কোনো পরিবর্তন নেই শীর্ষে। তবে নিচের দিকে সুখবর মিলেছে আফগানিস্তানের জন্য। শ্রীলঙ্কানকে নয়ে নামিয়ে আফগানরা উঠে গেছে আটে।

বাংলাদেশ আগের মতোই আছে দশে। তবে হারাতে হয়েছে দুটি রেটিং পয়েন্ট।

হালনাগাদের পর দলগুলোর অবস্থান (ওয়ানডে):

‌র‌্যাঙ্কিং দল রেটিং পয়েন্ট
ইংল্যান্ড ১২৫ (+৯)
ভারত ১২২ (-১)
দক্ষিণ আফ্রিকা ১১৩ (-৪)
নিউ জিল্যান্ড ১১২ (-২)
অস্ট্রেলিয়া ১০৪ (-৮)
পাকিস্তান ১০২ ((+৬)
বাংলাদেশ ৯৩ (+৩)
শ্রীলঙ্কা ৭৭ (-৭)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৬৯ (-৫)
১০ আফগানিস্তান ৬৩ (+৫)
১১ জিম্বাবুয়ে ৫৫ (+৪)
১২ আয়ার‌ল্যান্ড ৩৮ (-৩)

 

হালনাগাদের পর দলগুলোর অবস্থান (টি-টোয়েন্টি)

র‌্যাঙ্কিং দল রেটিং পয়েন্ট
পাকিস্তান ১৩০ (-)
অস্ট্রেলিয়া ১২৬ (-)
ভারত ১২৩ (+২)
নিউ জিল্যান্ড ১১৬ (-)
ইংল্যান্ড ১১৫ (+১)
দক্ষিণ আফ্রিকা ১১৪ (+৩)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১১৪ (+৩)
আফগানিস্তান ৮৭ (-১)
শ্রীলঙ্কা ৮৫ (-৪)
১০ বাংলাদেশ ৭৫ (-২)
১১ স্কটল্যান্ড ৬৬ (-১)
১২ জিম্বাবুয়ে ৫৮ (-৩)
১৩ নেদারল্যান্ডস ৫৩(+৪)
১৪ আরব আমিরাত ৫১ (-১)
১৫ হংকং ৪২ (-৪)
১৬ ওমান ৩৯(+১)
১৭ আয়ার‌ল্যান্ড ৩৩ (-৩)